সিঙ্গাপুরের সেরা ব্যাংক তালিকা

সিঙ্গাপুরের সেরা ব্যাংকের তালিকা

প্রিয় পাঠক বন্ধুরা আশা করি সকলে ভাল আছেন। সিঙ্গাপুরের নাগরিক এবং প্রবাসীদের জন্য সিঙ্গাপুর ব্যাংকের লেনদেন করার প্রয়োজন হয়ে থাকে। তাই সিঙ্গাপুরের কোন ব্যাংক ভালো কোন ব্যাংকের রেংক কেমন লেনদেন কেমন জনপ্রিয়তা কেমন তা জানা প্রয়োজন। আমাদের কাছে সিঙ্গাপুরের জনপ্রিয় ব্যাংক গুলির মধ্যে একটি তালিকা রয়েছে যা আপনার জন্য জানা জরুরী। সেরা ব্যাংক গুলো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সহ আদর্শ একটি তালিকা প্রকাশ করছি। আপনি যদি সিঙ্গাপুরে বসবাস করে থাকেন কিংবা সিঙ্গাপুরে থাকা‌ জনপ্রিয় ব্যাঙ্ক গুলির প্রয়োজনীয় সব তথ্য জানতে চান তবে এই আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

সিঙ্গাপুরের সেরা 10 টি ব্যাংকের তালিকা

সিঙ্গাপুরের সরকারের নীতি এবং অর্থনীতির সুবিন্যস্ত নীতিমালা থাকায় এই দেশের ব্যাংকিং নীতিমালা এসেছে আমল পরিবর্তন এবং গণমুখী হওয়ায় বিদেশি অনেক ব্যাংক তাদের শাখা খুলেছে সিঙ্গাপুরে। তাই জনপ্রিয়তা সরকারি গ্রহণযোগ্যতা এবং লেনদেনের দিক থেকে সকল ব্যাংক থেকে বাছাই করে দশটি ব্যাংক সম্পর্কে জানাবো এই আর্টিকেলে।
সিঙ্গাপুর সরকারের দুর্দান্ত কৌশল ব্যাংক গুলোকে সহজে সারা বিশ্বের সাথে যোগাযোগ করতে সহায়তা করে। সিঙ্গাপুরের জীবন যাত্রা ব্যাংক গুলোকে আরো জনপ্রিয় এবং ব্যবহার উপযোগী করে তুলেছে। তাই সিঙ্গাপুরকে “ব্যাংকিং হাব” বলা হয়। ২০১৩ সালের সিঙ্গাপুর ব্যাংকের সম্পদের পরিমাণ ছিল দুই ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার। তাহলে আমরা বুঝতে পারছি সিঙ্গাপুরের ব্যাংকিং ব্যবস্থা কতটা উন্নত এবং সম্ভাবনাময়। তাই সিঙ্গাপুরে যারা লেনদেন করতে চান কিংবা সিঙ্গাপুর ব্যাংক সম্পর্কে ধারণা নিতে চান তাদের জন্য দশটি জনপ্রিয় ব্যাংক তালিকা ও তাদের গঠনতন্ত্র প্রকাশ করছি।

সিঙ্গাপুরের সেরা ব্যাংকের তালিকা

সিঙ্গাপুরের ব্যাংক কাঠামো অনুযায়ী ১০ টি জনপ্রিয় ব্যাংকের তালিকার মধ্যে ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করছি;

১) ডিবিএস গ্রুপ

২) বিদেশি চিনা ব্যাংকিং কর্পোরেশন

৩) ইউনাইটেড ওভারসিস ব্যাংক

৪) ব্যাঙ্ক অফ সিঙ্গাপুর

৫) সিটি ব্যাংক সিঙ্গাপুর

৬) সিআইসি সিঙ্গাপুর

৭) এইচ এইচ বি সি সিঙ্গাপুর

৮) May Bank সিঙ্গাপুর

৯) স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক সিঙ্গাপুর

১০) আর এইচ বি ব্যাংক সিঙ্গাপুর

আমরা এতক্ষণ শেয়ার করেছি সিঙ্গাপুরে লেনদেনসহ অর্থনৈতিক অঙ্গনে প্রভাব বিস্তার করা দশটি জনপ্রিয় ব্যাংকের তালিকা। এবারে আমরা বিস্তারিত জানাবো এই ব্যাংকগুলো কেন এক থেকে দশ পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে সাজানো হলো। তাদের জমাকৃত অর্থ এবং ব্যাংকিং সুযোগ সুবিধা সহ কেন জনপ্রিয় আসুন জানার চেষ্টা করি।

১. ডিবিএস গ্রুপ

এই ব্যাংকের অর্জিত মোট সম্পদের পরিপ্রেক্ষিতে এই ব্যাংক তালিকার শীর্ষে রয়েছে। এছাড়াও এশিয়ার বৃহত্তম আর্থিক কর্পোরেশন গুলির মধ্যে এটি অন্যতম। ২০১৭ সালের জুনের শেষে এই ব্যাংকের অর্জিত মোট সম্পদের পরিমাণ ছিল মার্কিন ৪৮৬ পয়েন্ট ৬৯৯ বিলিয়ন ডলার। মার্চ ২০১৭ তে এর ব্যাংকের মোট নিট মুনাফা ছিল 1.2 বিলিয়ন ডলার। এই ব্যাংক ৪.৬ মিলিয়ন গ্রাহকদের সেবা দিয়ে থাকে। এই ব্যাংকে প্রায় ২২ হাজার লোক কাজ করে। এই ব্যাংকের হেডকোয়ার্টার মেরিনা বে ফাইন্যান্সিয়াল সেন্টারে অবস্থিত।

২. বিদেশি চিনা ব্যাংকিং কর্পোরেশন

এই ব্যাংকের অর্জিত মোট সম্পদের পরিপ্রেক্ষিতে ও সিবিসি দ্বিতীয় শীর্ষ জনপ্রিয় ব্যাংক। জুন ২০১৭ এর শেষে এই ব্যাংকের অর্জিত মোট সম্পদের পরিমাণ ছিল ৪৩৯.৬০১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এই ব্যাংক ১৯৩২ সালে প্রতিষ্ঠিত এই ব্যাংকের ১৮টিও বেশি শাখা রয়েছে সব মিলিয়ে সারা বিশ্বে এর মোট ৬০০টির বেশি শাখা রয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানে ৩০ হাজার লোক কাজ করে। ব্যাংকটির হেডকোয়ার্টার চুলিয়া স্টেটে অবস্থিত।

৩. ইউনাইটেড ওভারসিস ব্যাংক

এই ব্যাংকের মোট সম্পদের হিসাব অনুসারে ইউ ওবি তৃতীয় শীর্ষ স্থানীয় ব্যাংক। জুন ২০১৭ সালে শেষের দিকে এই ব্যাংকের মোট সম্পদের পরিমাণ ছিল ৩৪৪.৪১৪ মার্কিন মিলিয়ন ডলার। মার্চ ১৭ এর শেষের দিকে সম্পূর্ণ লভ্যাংশ ছিল ৮০৭ মিলিয়ন ডলার। এই ব্যাংকটি ১৯৩৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯ টিরও বেশি দেশে এই ব্যাংকের উপস্থিতি রয়েছে। সারা বিশ্বের মোট ৫০০টি শাখা রয়েছে। এবং এই ব্যাংকে ২৫ হাজার লোক কাজ করে। এই ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় রিপ্লেসটিআই এ অবস্থিত।

৪. ব্যাংক অফ সিঙ্গাপুর

এই ব্যাংক ও সি বিবি এর সহযোগী একটি প্রতিষ্ঠান। সহায়ক ব্যান হওয়া সত্বেও এটি একটি জনপ্রিয় এবং বিশাল ব্যাংক। ২০১৭ সালের এপ্রিলের শেষের দিকে এই ব্যাংকের অর্জিত মত সম্পদ ছিল ১১৫.৯৪ বিলিয়ন ডলার। গ্লোবাল ফাইন্যান্স এবং এশিয়ান প্রাইভেট ব্যাংক দ্বারা ২০১১ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত সেরা বেসরকারি ব্যাংক হিসেবে এটি তালিকায় নাম অর্জন করতে সক্ষম হয়। এই ব্যাংকের হেডকোয়ার্টার মার্কেট স্ট্রিটে অবস্থিত। হংকং মেলিনা লন্ডন এবং দুবাইতে সিঙ্গাপুরের অনেক শাখা রয়েছে।

৫. সিটি ব্যাংক সিঙ্গাপুর

সিঙ্গাপুরে প্রথম আমেরিকান ব্যাংক এটি। এই ব্যাংক প্রায় ১৫ বছর আগে ১৯০২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এই ব্যাংকটি সিঙ্গাপুরের বৃহত্তম নিয়োগ কর্তাদের মধ্যে একটি। দশ হাজার তেরো জনের বেশি কর্মচারী নিয়োগ করেছে এই ব্যাংক। ১৫ সাল বেশি গ্রাহক টাচ পয়েন্ট এবং সিঙ্গাপুরে ২০টির বেশি শাখা রয়েছে। এছাড়াও এটির অনেক ব্যবসায়িক ইউনিট রয়েছে সিটি কমার্শিয়াল ব্যাংক সিটি গ্লোবাল কনজিউমার ব্যাংকিং ইত্যাদি। এর প্রধান কার্যালয় টেমাসেখ এভিনিউতে।

৬. সি আই সি সিঙ্গাপুর

এই ব্যাংক ব্যাপক জনপ্রিয়তার সাথে অর্থনৈতিক লেনদেন চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের প্রধান টার্গেট হলো এসএমএস ব্যাংকিং সেবা এবং তারা সিঙ্গাপুরের গ্রাহকদের জন্য সবচেয়ে ব্যাপক সম্পদ ব্যবস্থাপনা সমাধানও অফার করে থাকে। সিএসসি ক্রেডিট গ্রুপের সম্পূর্ণ মালিকানাধীন একটি প্রতিষ্ঠান। এই ব্যাংক ১৯৮৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং এটি এশিয়ার স্পেসিফিক এর হেডকোয়ার্টার হিসেবে বিবেচিত। এর প্রধান কার্যালয়ে মেরিনোবে ফাইনান্সিয়াল সেন্টার অবস্থিত।

৭. এইচএসবিসি সিঙ্গাপুর

এই ব্যাংক সিঙ্গাপুরের অতি প্রাচীনতম শীর্ষস্থানীয় একটি ব্যাংক। প্রায় ১৪০ বছর আগে ১৮৭৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এতে প্রায় তিন হাজার লোক কাজ করে। সিঙ্গাপুর জুড়ে এর দশটি ও বেশি সাক্ষা রয়েছে এবং দেশে চল্লিশটির বেশি এটিএম রয়েছে। এই ব্যাংকের সদর দপ্তর কুলিয়ার কুয়েতে অবস্থিত। গ্রাহকদের জন্য ব্যক্তিগত এবং বাণিজ্যিক ব্যাংকিং পণ্যের সম্পূর্ণ বিমান সহ সুযোগ-সুবিধা দেয়।

৮. May Bank সিঙ্গাপুর

এই ব্যাংকটি সিঙ্গাপুরের অতি প্রাচীনতম একটি ব্যাংক। ৫৭ বছর আগে ১৯৬০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এই প্রতিষ্ঠানে ১৮০০ জনের বেশি কর্মচারী নিয়োগ রয়েছে এবং তারা সিঙ্গাপুরের গ্রাহকদের জন্য বর্তমান এবং সঞ্চয় একাউন্ট ইসলামিক আমানত ঋণ প্রদানের পণ্য বিনিময়ে বিনিয়োগ ইত্যাদির মতো পরিপূর্ণ সেবা প্রদান করে যাচ্ছে। ২৭ টি স্থানে এর সেবা চলমান রয়েছে এশিয়ার শীর্ষ পাঁচ ব্যাংক হিসেবে স্থান পেয়েছে একটি সিঙ্গাপুরের একটি যোগ্যতা সম্পন্ন ব্যাংক।

৯. স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক সিঙ্গাপুর

বি এল সি এর সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে এর পরিচিতি। এই প্রতিষ্ঠান প্রায় দেড়শ বছর আগে সিঙ্গাপুরের প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। সারা দেশে এই প্রতিষ্ঠানের ১৮টির বেশি শাখা রয়েছে। ৩০ এটিএম রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটিতে পাঁচটি অগ্রাধিকারমূলক ব্যাংকিং কেন্দ্র রয়েছে। বর্তমানের সম্পদ রয়েছে ৩৩ বিলিয়ন আমেরিকান ডলার এবং গ্রাহক ঋণ ২৩ বিলিয়ন ডলার। এটা হেডকোয়ার্টার মেরিনা বি ফাইন্যান্সিয়াল সেন্টার অবস্থিত। অক্টোবর ১৯৯৯ সালের সিঙ্গাপুরে কোয়ালিফাইভ ফুল ব্যাংক ইউএসডি এর লাইসেন্স পেয়েছে।

১০. আর এইচ বি ব্যাংক সিঙ্গাপুর

এই প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৫৬ বছর আগে ১৯৬১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। ওই সময়ে এই প্রতিষ্ঠানের নাম ছিল ইউনাইটেড মালায়ন ব্যাংকিং কর্পোরেশন। এটি সার্বজনীন ব্যাংক। সিঙ্গাপুরের সাত টি স্থানে উপস্থিতি রয়েছে। প্রাথমিক লক্ষ্য হলো সর্বাধিক গ্রাহক সন্তুষ্টির উপর এ কারণে এটি সিঙ্গাপুর এবং মালয়েশিয়ার একমাত্র ব্যাংক যা ব্যাংকিং সেবাতে সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ বছরের পর বছর অভিজ্ঞতা পুরস্কার পেয়েছে।

সিঙ্গাপুরে ১১১ টি বাণিজ্যিক ব্যাংক রয়েছে। ৪৯টি মার্চেন্ট ব্যাংক এবং ৪৫ টা ব্যাঙ্ক এর প্রতিনিধি অফিস রয়েছে এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য দশটি সেরা ব্যাংক তালিকা প্রকাশ করলাম।

উপসংহার

সিঙ্গাপুরের ১১১ টি বাণিজ্যিক ব্যাংকের মধ্যে সেরা ১০ টি আর্থিক লেনদেন এবং জনপ্রিয়তা হিসেবে তালিকায় প্রকাশ করলাম। এর যেকোনো একটি ব্যাংকে আপনি চাইলে অনায়াসে লেনদেন করতে পারেন। অন্যান্য বেঙ্গলিও ব্যাপক জনপ্রিয় এবং সিঙ্গাপুরে সমাদৃত।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *